পিরোজপুর ৩ আসনের এমপি ডা. রূস্তম আলী ফরাজীর বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে

চলমান সংকট কালে পিরোজপুর ৩ আসনের এমপি ডা. রুস্তম আলী ফরাজীর বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও দেশের এই চলমান সংকট কালে তিনি ঢাকায় সরকারি বাসভবনে অবস্থান করছেন। তার নিজ নির্বাচনী এলাকার জনগণের কোন খোঁজ খবর নেওয়া প্রয়োজন মনে করেননি।

করোনা ভাইরাসে যখন সারাদেশে দূর্যোগময় অবস্থা ঠিক তখনই তার বিরুদ্ধে সরকারি চাল আত্মসাতের অভিযোগ করেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতারা। ফলে বিভিন্ন মহলে ব্যাপক গুঞ্জন ও সমালোচনা শুরু হয়েছে।

চাল আত্মসাতের অভিযোগ করে মঠবাড়ীয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে যে অভিযোগ করেন তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

প্রিয় মঠবাড়িয়াবাসী
আসসালামু আলাইকুম
আমি মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান, সাধ থাকলেও সবার চাহিদা পুরন করতে বেশিরভাগ সময়ই ব্যর্থ হই। সামর্থের মধ্যে যতটুকু সম্ভব তার সবটুকু দিয়ে এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে গিয়ে দাড়ানোর চেষ্টা করছি। হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয় তখনই, যখন কেউ আশা করে আমার কাছে এসে নিরাশ হয়ে ফেরত যায়। প্রচন্ড মানসিক কষ্ট অনুভব করি, কারন!!!!
এইতো কিছুদিন আগে ধ্বংসযগ্মের মধ্যে শত প্রতিকুলতা উপেক্ষা করে শতআশায় বুকবেধে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আমাদের সমর্থন দিয়েছেন। নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে এসব একদিকে আমকে পিরা দেয় অন্যদিকে অনেক বিষয়ে ক্ষুব্ধও হই।

জতীয় নির্বাচনে যিনি মহাজোটের তকমা লাগিয়ে যিনি এম পি বনে গেলেন, এই দুঃসময়ে তার ভুমিকা কি? অনেক প্রসঙ্গ এখন নাই বললাম। এইতো কয়েকদিন পুর্বে এম পি মহদয় ১০০০০ কেজি চাল নিলেন সালাম মেম্বর,শহিদ মেম্বর, খলিল মেম্বরকে সিপিসি করে!!!
সেই চাল কোথায়? কাদের দিলেন?
যেই নাড়াচাড়া পরছে দু একটা চ্যালা খুব বস্তা নিয়া দৌড়াদৌড়ি শুরু করছে।ভাবখান এমন খুব উদ্ধার করছে মানুষকে।
আমি কোনোভাবেই তার সমকক্ষ না, তিনি অনেক সিনিয়র রাজনিতীবিদ, চার বারের এম পি
কিন্তু তারও যে ভোট ও নির্বাচনি এলাকা আমারও একই। সুধু আমারা দিনের আলোতে জনগনের ভোটে নির্বাচিত ,আর তিনি….. । তিনি পান ১০০০০কেজি আর আমি ৫০০।

বাকি কথা পরে হবে, চ্যালাদের বলেন দ্রুত জনগনের আমানত জনগনের কছে ফেরত দিতে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টা ম্লান করলে আমরা কিন্তু ছেড়ে দেবোনা।
আমি আপনাদের সন্তান, হাজারো সংকীর্নতার মাঝেও সাধ্যমতো আপনাদের পাশে থাকার চেষ্টা করবো। সবার চাহিদা পুরন করতে না পারার জন্য আমি আপনাদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।
মহান রব্বুল আলামীন আমাদের সহায় হোন।

In conclusion, transition words are an important aspect of SEO copywriting.

মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here